প্রজাতন্ত্র নেই, আছে অবিমিশ্র রাজতন্ত্র

দলের ওপর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একচ্ছত্র আধিপত্য সংক্রমিত হয়েছে সরকার পরিচালনায়। এই মমতাশাহি দেখলে ছাত্রজীবনে দেখা ইতিহাসের মাস্টারমশাই নির্ঘাত বলতেন ‘দি অ্যাবসোলিউট মনার্কি অব বেঙ্গল’। পার্থ চট্টোপাধ্যায় Anandabazar Patrika, 19th April 2016

চন্দনকাঠের লেখনী – শোভন ভট্টাচার্য

…, অনেকদিন পর, এমন একটা উপহার আজ পেলাম, যা কেবল, যে কোনো একটা সৌজন্যমূলক গিফটমাত্রই নয়, যার সঙ্গে সাধারণত মিশে থাকে সামাজিকতার শুকনো অভিশাপ। এক্ষেত্রে, মহীশূর চন্দনকাঠের এই লেখনীটি, কারও উপহার হিসেবে মনস্থ করার পেছনে রয়েছে প্রাপকের রুচির প্রতি, ক্রিয়াকর্মসংস্কারের প্রতি, গভীরতর এক সম্মাননা।

দেবতা আমায় ফেলে – ভাস্কর চক্রবর্তী

দেবতা আমাকে ফেলে সন্ধ্যেবেলার ট্রেনে দেরাদুন গেছেন । আমি একা ছোটো ঘরে থাকি – ফলে আলো পড়ে না শরীরে, মনে – আমিও শহরতলি ফেলে রেখে ভাঙা এ শহরে থেকে যেতে চাই পাহাড়ে বা সমুদ্রবাতাসে । দেবতা চুরুট হাতে আমার সমস্ত কথা শুনে হেসেছেন । ‘যদিও শেরিফ নও তুমি’- তিনি বলেছেন,’ধ্বস্ত এ শহর দেখাশোনা করো তুমি’-Continue reading “দেবতা আমায় ফেলে – ভাস্কর চক্রবর্তী”

গাছকৌটো – স্বাগতা দাশগুপ্ত

দুধে-আলতা ছাড়াই আমি পা রেখেছি আপনার সংসারে । ব্যাঙ ডেকেছে চারপাশে । ঝিঁঝিঁরাও দিয়েছে সেইমতো সঙ্গ । আমার দুই বুকে মিশে ছিল বিষণ্ণ জন্মদাতা – যে কিনা আপনারই কোনও এক জন্মের রাধিকা । কয়েকটা জন্ম আমি শ্মশানে ঘুরেছিলাম । আমার নাভির সাথে জুড়ে ছিল এক উন্মত্ত পিশাচিনী । প্রতি রাত্তিরে সে যখন নাচতে নামত টানContinue reading “গাছকৌটো – স্বাগতা দাশগুপ্ত”

অতোটা হৃদয় প্রয়োজন নেই – রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহ

অতোটা হৃদয় প্রয়োজন নেই, কিছুটা শরীর কিছুটা মাংস মাধবীও চাই। এতোটা গ্রহণ এতো প্রশংসা প্রয়োজন নেই কিছুটা আঘাত অবহেলা চাই প্রত্যাখান। সাহস আমাকে প্ররোচনা দেয় জীবন কিছুটা যাতনা শেখায়, ক্ষুধা ও খরার এই অবেলায় অতোটা ফুলের প্রয়োজন নেই। – রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহ

‘জলপাই কাঠের এসরাজ’ থেকে – মৃদুল দাশগুপ্তের কবিতা

ধরো, ধরো, সেদিনও এমনই রাত, এই ঋতুবদলের মাস, এই সেপ্টেম্বর, ধরো, সেদিনও এমনভাবে নিদ্রাহীন বসে থাকা, কৃষ্ণপক্ষ, আর